Logo
শিরোনাম :

ত্যাগীদের অবমূল্যায়ন, হাইব্রিড ও বিবাহিতদের নিয়ে কমিটি গঠনের অভিযোগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
জাগো নিউজ : বুধবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১

নবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা হয়েছে। নবগঠিত এ কমিটি থেকে ইতোমধ্যে পদত্যাগের হিড়িক পড়েছে। এ পর্যন্ত সহ-সভাপতি, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ ৯ জন পদত্যাগ করেছেন।

জানা যায়, গত ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ ফয়ছল তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রাজুর স্বাক্ষরিত ছাত্রলীগের অফিশিয়াল প্যাডে উপজেলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দীঘলবাক ইউনিয়ন, করগাঁও ইউনিয়ন, দেবপাড়া ইউনিয়ন, গজনাইপুর ইউনিয়ন ও পানিউমদা ইউনিয়ন কমিটি অনুমোদন করা হয়।

ওই কমিটিগুলোর মধ্যে পতদ্যাগকারীরা হলেন দেবপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সহসভাপতি নুরুল আমিন রিয়ান সাংগঠনিক সম্পাদক মিশন চন্দ্র, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক সুবেল তালুকদার। পানিউমদা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সহসভাপতি কামাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. কুদ্দুছ মিয়া, সহ সম্পাদক শাহ নাঈম আহমেদ। গজনাইপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নব-গঠিত কমিটির সাংগঠিক সম্পাদক নাফিউর রহমান নাফি, সাংগঠনিক সম্পাদক অপি চৌধুরী। সকলেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজেদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পদত্যাগ করে পোস্ট করেন।

এ প্রসঙ্গে দেবপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সহসভাপতি পদ থেকে পদত্যাগকারী নুরুল আমিন রিয়ান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত, আমি দেবপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী ছিলাম, কিন্তু উপজেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ অর্থের বিনিময় বিএনপি-জামাত-শিবিরের কর্মী-সমর্থক ও বিবাহিতদের দিয়ে কমিটি গঠন করেছেন। সেই কমিটিতে আমাকে অবমূল্যায়ন করে সহ-সভাপতি রাখা হয়েছিল আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী যেহেতু বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সাথে বেঈমানী করে জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনাকে অমান্য করে বিএনপি-জামাত-শিবিরের কর্মী ও বিবাহিতদের দিয়ে অর্থের বিনিময় কমিটি গঠন করা হয়েছে তাই আমি সহ-সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেছি। তিনি বলেন, ফেসবুকে ঘোষণা দিয়ে পদত্যাগ করেছি শীঘ্রই জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের নিকট লিখিত পদত্যাগ পত্র জমা দিবো।

পানিউমদা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. কুদ্দুছ মিয়া বলেন, আমি বাল্যকাল থেকে ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত, আমি পূর্বে পানিউমদা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি, বতর্মানে যুবলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত, কে বা কারা নতুন কমিটিতে আমার নাম সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে রাখা হয়েছে এটা অপমানজনক। তাই আমি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা জানান- ইতিমধ্যে পদত্যাগ শুরু হয়েছে, ৯-১০জন করেছেন। আরও অনেকেই পদত্যাগ করবেন এবং লিখিত আকারে জেলা ছাত্রলীগের কাছে জমা দিবেন।

এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ ফয়ছল তালুকদার বলেন, ছাত্রলীগ একটি বিশাল সংগঠন, যদি ছাত্রলীগের কমিটিতে বিবাহিত কিংবা অন্যান্য দলের কেউ দায়িত্ব পেয়ে থাকে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে কমিটি গুলো অনুমোদন দেয়া হয়েছে অর্থের মাধ্যমে কমিটি দেয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা-বানোয়াট। ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ভুলবশত পানিউমদা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে মো. কমর মিয়ার স্থলে মো. কুদ্দুছ মিয়া লিখা হয়েছে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সময় নাম সংশোধন করা হবে। তিনি আরও বলেন, একটি কমিটিতে পদ প্রত্যাশী থাকেন অনেক, সবাইকে এক পদে বসানো যায়না, সবাই যোগ্য তবে সুযোগ নেই হয়তো মনের কষ্টে ভুল বুঝে কিংবা পদ না পেয়ে তারা পদত্যাগ করেছেন। তবে শীঘ্রই এসব ভুল বুঝাবুঝির অবসান হবে এবং তারা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে।

এ ব্যাপারে জানতে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বলেন, নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ বিভিন্ন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কমিটি করেছেন। সেই কমিটিগুলো থেকে নেতাকর্মীরা পদত্যাগ করেছেন বিষয়টি আমার জানা নেই, আমার কাছে এখনো কেউ লিখিত পদত্যাগ পত্র জমা দেয়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ
ThemeCreated By ThemesDealer.Com
x
error: কপি করা নিষেধ !
x
error: কপি করা নিষেধ !