Logo
শিরোনাম :
পাঁচ হাজার বন্যার্তদের মুখে খাবার তোলে দিল ‘ইউনাইটেড নবীগঞ্জ’ বাংলাদেশে স্বপ্নের পদ্মা সেতু’র উদ্বোধন, গ্রিসে উদযাপন করল দূতাবাস নবীগঞ্জে বন্যার পানিতে ভেসে আসলো যুবকের লাশ পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে নবীগঞ্জ থানার আনন্দ র‌্যালী শ্রেষ্ঠ হিসেবে শুদ্ধাচার পুরস্কারে জন্য মনোনীত হলেন নবীগঞ্জের ইউএনও শেখ মহিউদ্দিন নবীগঞ্জে বন্যার্তদের মাঝে আব্দুর রহমান ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তা প্রদান দেশে বন্যায় মানুষ কষ্টে আছে : সরকার পদ্মাসেতু উদ্বোধনে আমোদ-ফুর্তিতে ব্যস্ত-ড. রেজা কিবরিয়া ‘শুকনো জায়গায় মাকে কবর দিও’ নবীগঞ্জে উল্টে গেলো বন্যার্তদের খাদ্যবাহী ট্রাক নবীগঞ্জে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে বন্যা : শতাধিক গ্রাম প্লাবিত : সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান

সেলফি যুগে নবীগঞ্জের তারেকের ছবি আঁকার নেশা

জাগো নিউজ
জাগো নিউজ : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

মোহাম্মদ তারেক খাঁন। তরুণ এক চিত্রশিল্পী । হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দিনারপুর পরগনার দেওপাড়া গ্রামে তার জন্ম।
বর্তমানে আধুনিক যুগে ছোট বড় সবার হাতে রয়েছে নানা ধরনের স্মার্টফোন। তবে, বেশির ভাগ দেখা যায়, যে স্মার্টফোনে সেলফি ভালো হয় মানুষ সেই ফোন ক্রয় করেন এবং তাতে ফটো ল্যাবের মাধ্যমে ছবিগুলো ইডিট করে থাকেন আর মোবাইলে সেলফি তোলার এই যুগে হাতে আঁকা ছবি তোলার চল একেবারেই কমে এসেছে। তবে অনেকেই আছেন যারা শিল্পীর রঙ-তুলি-পেন্সিলের আঁকা ছবি এখনো পছন্দ করেন।
তারেক হলেন ছবি আঁকার শিল্পী, যে মাত্র মোবাইলের মাধ্যমে কয়েক ঘন্টা অথবা সরাসরি ঘন্টা খানেক অবিকল আঁকতে পারেন মানুষের প্রতিচ্ছবি।


মোবাইলে তোলা ছবি কিংবা ফটোগ্রাফ দেখে মুহুর্তেই স্কেচে ফুটিয়ে তুলেন মানুষটিকে। ফেসবুক ও বিভিন্ন মাধ্যমে পরিচিত হয়ে অনেকেই প্রিয়জনদের এই স্কেচ করা ছবি উপহার দিতে ছুটে আসেন এ চিত্রশিল্পী তারেকের কাছে। অনেকে আবার নিজের ছবি আঁকাচ্ছেন স্মৃতি সংরক্ষণে।
মোহাম্মদ তারেক খাঁনের বাড়ি নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের দেওপাড়া গ্রামে।

চিত্রশিল্পী মোহাম্মদ তারেক খাঁন বলেন, ‘আমি ছোট বেলা থেকেই ছবি আঁকতে ভালবাসি। ছবি আঁকা আমার পেশা নয়, আমার নেশা হয়ে গেছে।’

তারেক আরো বলেন, ‘আমি আসলে ছবি আঁকি মানুষকে আনন্দ দেয়ার জন্য। সব সময় চেষ্টা করি, যাতে ছবিটা সুন্দর হয়। তাই খুব মনোযোগ দিয়ে ছবি আঁকি। পেন্সিলে আঁকা ছবি প্রিয়জনকে উপহার দেয়ার মনোবাসনা নিয়ে অনেকেই আসেন আমার কাছে।’
সম্প্রতি তারেক খাঁন বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রী দিপু মনির একটি ছবি আর্ট করে বেশ প্রশংসিত হয়। এমনকি শিক্ষামন্ত্রীর হাতে ছবিটি হস্তান্তর করে।

তারেক মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান হওয়ায় তাকে অনেকটা হিমসিম খেতে হচ্ছে। তার বাবা জিব্বাহ ক্যান্সারে অসুস্থ চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন। আপনাদের প্রিয়জনদের ছবি স্কেচ করাতে তার সাথে যোগাযোগ করে পাশে থাকার চেষ্টা করুন।

প্রিয়জনের ছবি আঁকাতে যোগাযোগ করতে পারেন তারেকের সাথে।
মোবাইল নং- ০১৭৩৬-৭৪২৬৬৯


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com
x
error: কপি করা নিষেধ !
x
error: কপি করা নিষেধ !