Logo

সিলেটে চাঞ্চল্যকর নারী হত্যা : ঢাকায় ‘খুনি’র স্বীকারোক্তি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
জাগো নিউজ : শনিবার, জুলাই ১৮, ২০২০

গত বছরের নভেম্বরে সিলেটে চাঞ্চল্যকর নারী হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামি মো. ইয়াছিন মিয়া আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে। সে ওই নারীকে সেদিন হত্যা করে সিলেট নগরীর তোপখানা এলাকায় সুরমা নদীরে তীরে ফেলে যায় বলে জবানবন্দিতে স্বীকার করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার জ্যোতির্ময় সরকার পিপিএম।

তিনি জানান, গত বছরের ২৫ নভেম্বর রাতে সিলেট নগরীরর তোপখানা এলাকায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের অফিসের সামনে সুরমা নদীর তীরে ফুটপাতের রেলিংয়ের নিচে মোছা. কুলসুমা আক্তার ফাতেমা নামের এক মহিলার লাশ পাওয়া যায়। পরে এই ঘটনায় এসআই মো. দেলোয়ার হোসেন বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামির বিরুদ্ধে ২৬ নভেম্বর সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় এজাহার দাখিল করেন। মামলা নং-৬২।

পরবর্তীতে চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস এ হত্যা মামলার ঘটনায় উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. আজবাহার আলী শেখ পিপিএম-এর নির্দেশনায় সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার একটি চৌকস দল গত ১৬ জুলাই প্রধান আসামি মো. ইয়াছিন মিয়া (২৫)-কে ঢাকার মিরপুর-৬ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।

ইয়াছিন আলী সিলেট নগরীর কালীঘাট (আমজাদ আলী রোড) এলাকার জিনু মিয়ার ছেলে।

এদিকে, গতকাল শুক্রবার আদালতে মো. ইয়াছিন মিয়া মোছা. কুলসুমা আক্তার ফাতেমাকে ঘটনাস্থলে হত্যা করে ফেলে রেখে পালিয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করে। পরে ইয়াছিন আলীকে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন আদালত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ
ThemeCreated By ThemesDealer.Com
error: কপি করা নিষেধ !
error: কপি করা নিষেধ !