Logo
শিরোনাম :
‘বন্ধু মহল ফাউন্ডেশন’ এর আত্মপ্রকাশ এমপি হাজী সেলিমের ছেলেসহ দুজনকে ১ বছরের কারাদণ্ড হাজী সেলিমের ছেলে র‌্যাব হেফাজতে নবীগঞ্জের বিভিন্ন পুজা মন্ডপ পরিদর্শনে রাজনৈতিক ও প্রশাসনের নেতৃবৃন্দ মায়ের লাশের পাশে নিশ্চুপ দাঁড়িয়ে থাকা শিশুটি নানির কাছে, ঘাতক অনিক কারাগারে নবীগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গনর্ধষণের অভিযোগে মামলা ! ‘যুবতী রাধে’র আসল মালিক কে? ছেলের হত্যাকারীরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত অনশনে থাকবেন রায়হানের মা নবীগঞ্জে পৌর নির্বাচনে ৬নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী হচ্ছেন করিম চৌধুরী বানিয়াচংয়ে এক গৃহবধুর লাশ ফেলে পালানোর সময় যুবক আটক

নিহতদের মধ্যে ৩জন করোনা পজিটিভ ২জন নেগেটিভ রোগী: ফায়ার ডিজি

জাগো নিউজ / ৩০৮ বার পঠিত
জাগো নিউজ : বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

করেসপন্ডেন্ট,জাগো নিউজ: রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত ইউনাইটেড হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ইউনিট (তাঁবু গেড়ে স্থাপিত) এ অগ্নিকাণ্ডস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন বলেছেন, ‘আমরা পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করেছি। যারা মারা গিয়েছেন তাদের মধ্যে ৩জন করোনা পজিটিভ রোগী ও ২জন করোনা নেগেটিভ রোগী। তারা হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। এ ঘটনায় আর কোনো হতাহত বা আহত নেই। অন্যান্য ইউনিটের যেসব রোগী রয়েছেন, তাদের কোনো সমস্যা হয়নি, তারা অক্ষত আছেন।’

বুধবার (২৭ মে) রাতে অগ্নিকাণ্ডের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, ৯টা ৫৫ মিনিটে আগুনের সংবাদ পেয়ে ১০টা ৪ মিনিটে ফায়ার সার্ভিসের প্রথম ইউনিট মূল ভবনের পেছন দিকে এক্সটেনশন অংশে লাগা আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। তাদের ফায়ার হাইড্রেন্ট ছিল তবে আমরা নিজেরাই সরঞ্জাম নিয়ে এসেছিলাম। আমাদের সরঞ্জাম দিয়েই আগুন নিয়ন্ত্রণ করেছি।

অগ্নিনিরাপত্তা ব্যবস্থার বিষয়ে ডিজি বলেছেন, ‘অগ্নিনিরাপত্তা ব্যবস্থা ওইভাবে ছিল না। কিন্তু ইউনিটের কাছেই ফায়ার হাইড্রেন্ট ছিল। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বোধ হয় ফায়ার হাইড্রেন্ট ব্যবহার করতে পারেনি।

ইউনাইটেড হাসপাতালের আগুনের নেভানোর সক্ষমতা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা এই হাসপাতালে মহড়া করেছি, যেই স্থানটিতে আগুন লেগেছে মহড়ার জন্য এই জায়গাটিও ব্যবহার করেছি।’

অবশ্য হাসপাতালের কমিউনিকেশন অ্যান্ড বিজনেস ডেভলপমেন্ট বিভাগের প্রধান ডা. সাগুফা আনোয়ার দাবি করেন, বৈদ্যুতিক শট-সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। তিনি বলেন, আগুন লেগেছে হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন সেন্টারে। করোনা রোগীদের জন্য পাঁচ শয্যার একটি আইসোলেশন সেন্টার খোলা হয়েছে মূল ভবনের বাইরে একটি একতলা ভবনে। সেখানে চারজন রোগী ভর্তি ছিলেন। রাতে হঠাৎ সেখানে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগে।


অন্যান্য সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com
error: কপি করা নিষেধ !
error: কপি করা নিষেধ !