Logo
শিরোনাম :
জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন: ‘উচিত শিক্ষা দিতে গিয়ে পাল্টাপাল্টি খুন’ আজমিরীগঞ্জে পূজায় বরাদ্দ সরকারি চাল গুদামে রেখেই পূজা উদযাপন কমিটির নেতার বাণিজ্য নবীগঞ্জের খাদ্য নিয়ন্ত্রক এর বদলী, অফিসার্স ক্লাবের সংবর্ধনা বানিয়াচংয়ে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জের বরখাস্তকৃত চেয়ারম্যান মুকুলকে শোকজ ! আসন্ন ইউপি নির্বাচন : কালিয়ারভাঙ্গায় আলোচনায় আছেন দেশী- প্রবাসী প্রার্থী বানিয়াচংয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি অনুদানের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ শায়েস্তাগঞ্জে বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ : নিহত ১ এস.আই আকবরকে ধরিয়ে দিলে ১০ লক্ষ টাকা পুরস্কার দেবেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সামাদ মাধবপুরে এক প্রতিবন্ধী শিশুর লাশ উদ্ধার

জাতির পিতা বেঁচে থাকলে দেশের চিত্র ভিন্ন হতো- এমপি আবু জাহির

জাগো নিউজ / ১৪৯ বার পঠিত
জাগো নিউজ : শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০

হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেঁচে থাকলে বাংলাদেশের চিত্র আজ ভিন্ন হতো। অনেক আগেই আমরা উন্নত এবং মর্যাদাশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেতাম। কিন্তু খুনীরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে দেশকে পেছনে ফেলে দেয়। পরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে সত্যিকারভাবে বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন দেশকে। অথচ তাঁকেও বার বার হত্যার চেষ্টা করা হয়। বুলেট, গ্রেনেড ও বোমা মেরে তাকে হত্যার জন্য ১৯ বার চেষ্টা করা হয়েছে। শেখ হাসিনার প্রাণ রক্ষার্থে জীবন দিয়েছেন ৭০ জন নেতাকর্মী।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শুক্রবার দুপুরে হবিগঞ্জ পৌর মিলনায়তনে আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন।

এমপি আবু জাহির বলেন, জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্টের খুনীদের রক্ষার চেষ্টা করেছেন। খালেদাও ওই খুনীদের বিচারের কাজ আটকে রাখেন পাঁচ বছর। তার সন্তান তারেক জিয়ার পরিকল্পনায় হয়েছে ২১ আগস্টের ভয়াল এই হত্যাযজ্ঞ। খুনী জিয়ার বাইরে আওয়ামী লীগেও ঘাপটি মেরে বসে আছে ষড়যন্ত্রকারীরা। তারা চায় না আওয়ামী লীগের ঐক্য। এ ব্যাপারে সকল নেতাকর্মীকে চোখ-কান খোলা রাখতে হবে। আমরা জাতির পিতাকে হারালেও শেখ হাসিনাকে হারাতে চাই না। এই প্রতিশ্রুতি নিয়ে কাজ করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল ফজল, শেখ সামছুল হক, সাবেক যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান তালুকদার, অ্যাডভোকেট সালেহ আহমেদ, জেলা যুবলীগ সভাপতি আতাউর রহমান সেলিম, হবিগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট নিলাদ্রী শেখর পুরকায়স্থ টিটো, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান শামিম, সাবেক সদস্য অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ, হবিগঞ্জ পৌর সভার মেয়র মিজানুর রহমান মিজান, সাবেক সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য সজীব আলী, আবুল কালাম আজাদ, অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান, অ্যাডভোকেট ক্ষিতিশ গোপ, সাবেক উপ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল মোছাব্বির বকুল, অ্যাডভোকেট শাহ ফখরুজ্জামান, সাবেক সদস্য অ্যাডভোকেট সুমঙ্গল দাশ সুমন, অ্যাডভোকেট আব্দুল মুনতাকিম চৌধুরী খোকন, মোস্তফা কামাল আজাদ রাসেল, সরকারি বৃন্দাবন কলেজের সাবেক ভিপি অ্যাডভোকেট রুকন উদ্দিন তালুকদার রুকু, স্বপন লাল বণিক, মিজানুর রহমান শামীম, সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী, পৌর যুবলীগের আহবায়ক ডাঃ ইশতিয়াক রাজ চৌধুরী, হবিগঞ্জ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শেখ সেবুল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন সুমন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবুল চৌধুরী, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জুনেদ, সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী সুজাত, পৌর ছাত্রলীগের আহবায়ক ফয়জুর রহমান রবিন, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক বিজন রায়, বৃন্দাবন কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাখাওয়াত হোসেন সেতু প্রমুখ।

পরে মাওলানা আমিনুল ইসলাম মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন। এর আগে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্প স্তবক অর্পণ করা হয়। বিকেলে হবিগঞ্জ পৌর যুবলীগের উদ্যোগেও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।


অন্যান্য সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com
error: কপি করা নিষেধ !
error: কপি করা নিষেধ !