Logo
শিরোনাম :
হবিগঞ্জের চার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রতিবাদে লাখাইয়ে মানববন্ধন বানিয়াচংয়ে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে আলোচনা সভা ও র‌্যালী অনুষ্ঠিত স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন ! ধর্মপাশায় বিধি বহির্ভূত নিয়োগ : অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জনগণের অংশগ্রহণে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে- ডাঃ মুশফিক হোসেন হবিগঞ্জে চার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রতিবাদে মানববন্ধন শায়েস্তাগঞ্জে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু ইউএনও’কে দেখে বাল্য বিয়ের অনুষ্ঠান রূপ নিলো মিলাদ মাহফিলে ! ইনাতগঞ্জে কুড়েরপাড় গ্রামবাসীর সাথে চেয়ারম্যান প্রার্থী নোমান হোসেনের মতিবিনিময় সুনামগঞ্জে চুরির মোটর সাইকেলসহ ৩ জন গ্রেফতার

আজমিরীগঞ্জ পৌরসভা : প্রতিষ্ঠার ১৪ বছরেও হয়নি নির্বাচন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট / ১৫৪ বার পঠিত
জাগো নিউজ : শনিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২০

আইনি জটিলতায় প্রতিষ্ঠার পর থেকে একবারও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ পৌরসভায়। টানা ১৪ বছর ধরে প্রশাসকের পদে রয়েছেন একই ব্যক্তি। যে কারণে গণতান্ত্রিক অধিকার বঞ্চিত ওই পৌরসভার ১৩ সহস্রাধিক মানুষ। উন্নয়ন কাজ হচ্ছে না সঠিকভাবে। নাগরিক জীবনের অগ্রগতি তেমন একটা নেই বললেই চলে । ঐতিহ্য হারাচ্ছে এক সময়ের জমজমাট আজমিরীগঞ্জ বাজারও। শিগগিরই এখানে নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

সূত্রে প্রকাশ , ২০০৪ সালের ২১ জানুয়ারি আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সদরকে পৌরসভা হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তখন প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পান তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। একই বছরের ডিসেম্বরে প্রশাসক পদে নিয়োগ পেয়েছিলেন বিএনপি নেতা গোলাম ফারুক। এরপর শুরু হয় ওয়ার্ড বিভক্তিকরণ কার্যক্রম। তবে উপজেলা সদরের নোয়াগাঁও, ফতেহপুর ও শুক্রবাড়ি গ্রাম পৌরসভাটি থেকে বাদ পড়ে।

ওই তিন গ্রাম পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে উচ্চ আদালতে রিট করেন তৌহিদ মিয়া নামে এক ব্যক্তি। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওয়ার্ড বিভক্তিকরণ কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করেন আদালত। যে কারণে প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত ১৪ বছর পেরিয়ে গেলেও নির্বাচন হয়নি।

এক সময় ভাটি অঞ্চলে বাণিজ্যের কেন্দ্র বিন্দু ছিল আজমিরীগঞ্জ বাজার। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এখানে ব্যবসা কর আসতেন লোকজন। ছিল ব্যাপক সম্ভবনা। সঠিক উন্নয়ন কার্যক্রমের অভাবে বাজারটি আজ নিরব। ধ্বস নেমেছে বাণিজ্যে। পৌরসভার কার্যক্রম তরান্বিত হলে এ বাজারকে ঘিরে এলাকার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হতে পারত বলে মনে করছেন এলাকার বাসিন্দারা।

স্থানীয় ওয়ারিশ মিয়া নামে এক ব্যক্তি জানান, হবিগঞ্জ জেলায় পৌরসভার সংখ্যা পাঁচটি। এর মধ্যে চারটি পুরোপুরিভাবেই শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। কিন্তু আজমিরীগঞ্জ পৌরসভায় তেমন উন্নয়ন কাজ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। রাস্তাঘাটও ভাঙা। পৌর ভবনটিরও জরাজীর্ণ অবস্থা। কুশিয়ারা নদীকে ঘিরে রয়েছে সম্ভাবনাময় স্থলবন্দর। যার কোনো উন্নয়নই হয়নি। যে কারণে নৌ যোগাযোগ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ঐতিহ্যবাহী আজমিরীগঞ্জ বাজারও এখন সারা বছর নিরব থাকে। পৌরসভার কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকলে বাজারটি ঐতিহ্য ফিরে পেত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুকে অনেকেই বলেন, নিয়মানুযায়ী নির্বাচন হলে জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমতা হারানোর আশঙ্কা থাকত। এমনটা হলে বাড়ত দায়িত্বশীলতাও। কিন্তু ১৪ বছর ধরে একজনই পৌরসভার প্রশাসক থাকায় তেমন উন্নয়ন হচ্ছে না। এজন্য শীঘ্রই নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন তারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, জরাজীর্ণ ভবনে দীর্ঘদীনের পুরনো একটি সাইনবোর্ড সাঁটানো আজমিরীগঞ্জ পৌরসভা কার্যালয়ে। গাড়িগুলোও অব্যবহৃত থাকার কারণে অকেজো প্রায়। সামান্য বৃষ্টি হলেই ভবনের ভেতরে পানি পড়ে বলে জানিয়েছেন আশপাশের বাসিন্দারা।

এ ব্যাপারে আজমিরীঞ্জ পৌরসভার প্রশাসক গোলাম ফারুক ‘জাগো নিউজ’কে বলেন, উন্নয়ন কাজ সঠিকভাবেই পরিচালিত হচ্ছে। তবে নাগরিকরা ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো. নূরুল ইসলাম ‘জাগো নিউজ’কে বলেন, আদালতে মামলা জনিত কারণে নির্বাচন বন্ধ রয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের তেমন কিছু করার নেই।


অন্যান্য সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com
error: কপি করা নিষেধ !
error: কপি করা নিষেধ !